কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জন বাংলাদেশী নিহত

জাতীয়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা শহরে আজ দুপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারীসহ দু’জন বাংলাদেশী নিহত হয়েছেন।


এছাড়া এ দুর্ঘটনায় আরো কয়েজন আহত হয় ।
কোলকাতা শহরের শেক্সপিয়ার সরণী ও লাউডন স্ট্রিটের সংযোগ স্থলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন, রাজধানী মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা ব্যাংক কর্মকর্তা ফারহানা ইসলাম তানিয়া (২৮) ও গ্রামীণ ফোনের সার্ভিস হোল্ডার মিরপুরের বাসিন্দা কাজী মোহান্মদ মঈনুল আলম (৩৬)।
এ দুর্ঘটনায় বাংলাদেশের আরো একজন নাগরিক আহত হন।


কলকাতা শহরের শেক্সপিয়ার থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা অমিত বসু বাসস’কে জানান, বিড়লা তারামন্ডল থেকে কলামন্দিরের দিকে বেপরোয়া গতিতে আসা একটি জাগুয়ার গাড়ি পার্কস্ট্রিট থেকে মিন্টোপার্কের দিকে যাওয়ার সময় বিপরীতগামী একটি মার্সিডিজ গাড়িকে ধাক্কা দেয়। এইসময় সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা তিনজন পথচারী পিষ্ট হয়। আহত হয়েছেন আরো কয়েকজন।
আহতদের সঙ্গে সঙ্গে এস.এস.কে.এম হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দু’জনকে মৃত ঘোষণা করেন।


আহত আরও একজন বাংলাদেশী নাগরিকসহ মার্সিডিজ গাড়ির চালককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরমধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
পুলিশ জানিয়েছেন, নিহতরা চোখের ডাক্তার দেখানোর জন্য কলকাতায় আসেন। ঘটনার সময় তারা ডাক্তার চেম্বার থেকে ফেরার পথে প্রচন্ড বৃষ্টির কারণে ওই ফুটে আশ্রয় নেয়। ঘটনার পর জাগুয়ার গাড়ির চালক পালিয়ে যায়।
এছাড়াও গতকাল শুক্রবার বিকেলে কলকাতা ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এলাকায় বৃষ্টিপাতের সময় বজ্রপাতে দু’জনের মৃত্যু হয়।
এছাড়া বজ্রপাতে ১৫ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে ৬ জন বাংলাদেশী। ঘটনার সময় তারা ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে পরিদর্শনে যায় এবং প্রবল বৃষ্টিপাতের সময় বহু পর্যটক ওই এলাকার গাছের নিচে আশ্রয় নেয়।
নিহতরা কোলকাতাস্থ দমদম ও বাশদ্রোনীর বাসিন্দা।
আহত ছয় জন বাংলাদেশীসহ ১৫ জনকে সঙ্গে-সঙ্গে এস এস কে এম (পিজি) হাসপাতালে পাঠানো হয়। আহতরা শঙ্কামুক্ত বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়।
কলকাতাস্থ বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার বাসসকে নিহত ও আহতের ঘটনাটি নিশ্চিত করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *