প্রসংঙ্গঃ বর্ণালী সিনেমা হল……… প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের উপর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে; পাতিনেতা ভূমিদস্যু মোস্তাক

ক্রাইম রিপোর্ট

  ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি; প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের উপর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে;  রাজশাহীর পাতিনেতা নব্য ভূমিদস্যু আ’লীগের পরিচয়ধারী মোস্তাক আহমেদ। সে নিজেকে মহানগর আ’লীগের নেতা দাবি করে চালিয়ে যাচ্ছে, জমি দখল, চর দখল, বালি উত্তোলন সহ বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকান্ড।  স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন উঠেছে এই মোস্তাকের ক্ষমতার উৎস কোথায়?জানা যায়, ভূমিদস্যু মোস্তাক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ উপেক্ষা করে এবং তার নির্দেশের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে স্থানীয় এক গডফাদারের ইশারায় সে একের পর এক জমি দখল অবৈধভাবে পদ্মা নদী থেকে বালু উত্তোলন, চাঁদাবাজি সহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড ফ্রিস্টাইলে চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি ভূমিদস্যু মোস্তাক ডেসটিনির শত শত কোটি টাকার সম্পদ রাজশাহী বর্ণালী সিনেমা হলের জায়গা দখল করে সেখানে পৌরসভার গ্যারেজের নামে সাইন বোড ঝুলিয়ে প্রতিদিন হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। আর এই টাকার একটি বড় অংশ চলে যাচ্ছে স্থানীয় এক গডফাদারের পকেট। বিষয়টি নিয়ে রাজশাহীতে এখন চাউর হয়ে পড়েছে। প্রশ্ন উঠেছে কে সেই গডফাদার? অন্যদিকে ডেসটিনির সম্পদ দখল করায় তৃর্ণমূলের সাধারন ডিস্ট্রিবিউটররা ক্ষুব্দ হয়ে উঠেছে। তারা বিষয়টি প্রতিবাদ করায় রাতে মোস্তাক বাহিনীর সদস্যরা এক ডিস্ট্রিবিউটরের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দিয়েছে। এবং বলেছে যদি কেউ এই সম্পদের দিকে তাকায় তাহলে তার চোখ উৎপাটন করে ফেলবে।ঘটনার পর থেকে সচেতনমহল সহ সারা বাংলাদেশের ডেসটিনির ৪৫ লাখ ডিস্ট্রিবিউটর ক্ষুব্দ হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে সচেতন মহলের দাবি সারা বাংলাদেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ বাস্তবায়িত হচ্ছে। তাদের প্রশ্ন রাজশাহী বাংলাদেশের মানচিত্রের বাইরে? আর এই ভূমিদস্যু মোস্তাকের ক্ষমতার উৎস কোথায়? কে এর গডফাদার? এটা প্রশাসনকে বের করতে হবে।এব্যাপারে ডেসটিনির বিনিয়োগকারী মোঃ ফারুক আহমেদ বলেন, সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে ভূমিদস্যু মোস্তাক বাহিনী সরকারি দলের ছত্রছায়ায় থেকে ডেসটিনির ৪৫ লক্ষ পরিবারের রক্তঝরা কোটি কোটি টাকার সম্পদ দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। কিন্তু ৪৫ লক্ষ ডেসটিনি পরিবার কিন্তু বসে থাকবেনা। সরকার এবং স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ অতিসত্বর কথিত গ্যারেজের নামে ডেসটিনির ৪৫ লাখ পরিবারের সম্পদ দখল করা মানেই বাংলাদেশের মানচিত্র দখল করা। কারণ ডেসটিনি পরিবার দীর্ঘ ৮ বছর তাদের সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণ এবং তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবি আদায়ের জন্য সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি তাদের অনুরোধ অনতিবিলম্বে ভূমিদস্যু মোস্তাক বাহিনীর কবল থেকে ডেসটিনির বর্ণালী সিনেমা হলের জায়গা উদ্ধার করে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট বুঝিয়ে দেয়া হোক। তা না হলে সারা বাংলাদেশে এই সম্পদ দখলকারী বা ভূমিদস্যু মোস্তাক বাহিনী সহ তার গডফাদার এর বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করবে তারা। এ ব্যাপারে তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, রাজশাহী জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার সহ সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।Attachments area

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *