আশুলিয়া থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে যোগ্য প্রার্থী সুমন আহমেদ ভুঁইয়া

রাজনীতি

হেলাল শেখঃ ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানা যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির সাধারণ সম্পাদক পদে দলীয় নেতাকর্মীদের পছন্দের তালিকায় ও জনমতে এগিয়ে আছেন আশুলিয়ার কৃতিসন্তান কর্মীবান্ধব বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, রাজপথের লড়াকু সাহসী যোদ্ধা ও চৌকস ত্যাগী নেতা আশুলিয়া থানা যুবলীগের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক এবং আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের অন্যতম সদস্য গরীবের বন্ধু সুমন আহমেদ ভুঁইয়া। তিনি দলীয় ও জাতীয় দিবসগুলো এবং বিভিন্ন কর্মসূচি সঠিকভাবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। জানা গেছে, তিন মাসের আহŸায়ক কমিটি দিয়ে প্রায় ৪ বছর পার হয়ে গেলেও আশুলিয়া থানা যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় হতাশার মধ্যে ছিলেন যুবলীগের নেতাকর্মীরা। ৯০দিনের আহŸায়ক কমিটি দেওয়া হয়, কিন্তু চার বছরেও তা পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রূপ নেয়নি বলে নেতাকর্মীসহ আশুলিয়াবাসী অনেকেই অভিমত প্রকাশ করেছেন। বর্তমান আহŸায়ক কমিটির বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী অনৈতিক কর্মকান্ড করায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদেরকে আটক করে আইনের আওতায় এনেছেন। অনেকেই বলেন, সমালোতিদের দিয়ে আহŸায়ক কমিটি করায় যুবলীগের প্রকৃত নেতাকর্মীরা এতোদিন ছিলেন দ্বিধাদ্ব›েদ্বর
মধ্যে। সদ্য ঢাকা জেলা যুবলীগের কমিটি বিলুপ্ত হওয়ায় অতি দ্রæত জেলার আওতায় আশুলিয়া থানাসহ সকল থানা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হবে এই আশ্বাসে আলোচনা ও সমালোচনা শুরু হয়েছে সংগঠনের নেতাকর্মী ও জনগণের মধ্যে। নতুন কমিটিতে কারা পদপ্রার্থী আর কারা সম্মানজনক স্থান পাবেন এনিয়ে চলছে নানারকম জল্পনা-কল্পনা ও অভিমত। সূত্র জানায়, নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পেতে বিভিন্ন পর্যায়ে চলছে পদপ্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ, শীর্ষ নেতাদের দাবি- যোগ্য প্রার্থীদের পদ দেওয়া হবে। যার মধ্যে রয়েছেন। যুবলীগের ঐক্যবদ্ধ কর্মীবান্ধব গতিশীল ত্যাগী নেতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক আশুলিয়াবাসীর অহংকার ও জনপ্রিতায় এগিয়ে আছেন এমনই একজন নেতা তিনি হলেন সুমন আহমেদ ভুঁইয়া। আশুলিয়া থানা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও জাতীয় শ্রমিকলীগ নেতাকর্মীসহ অনেকেইে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর
রহমানের আদর্শে অনুপ্রানিত জামগড়া ভুঁইয়া বাড়ির কৃতিসন্তান আওয়ামীলীগ পরিবারের আদর্শ-সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ইয়ারপুর ইউনিয়ন পরিষদের পরপর দুই দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান, সততার সাথে কাজ করায় সরকার কর্তৃক স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ ভুঁইয়া (মাষ্টার) আদর্শ পিতার সন্তান-সুমন আহমেদ ভুইয়া। তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রানিত, শিক্ষাজীবন থেকে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন আর রাজনৈতিক জীবনে ১৯৯৮সালে আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন সুমন আহমেদ ভুঁইয়া। এরপরে ২০০৬ সাল থেকে ২০১২ সাল
পর্যন্ত ই্ধসঢ়;য়ারপুর ইউনিয়ন যুবলীগের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর আশুলিয়া থানা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন করেন ২০১৭ সাল পর্যন্ত। আশুলিয়ার কৃতিসন্তান সুমন আহমেদ ভুঁইয়া ছাত্রজীবন থেকেই ছিলেন অতি সাহসী ও চৌকস এবং বিপ্লবী নেতা। তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর। বিএনপি’র জোট সরকারের সময় তিনিই ছিলেন রাজপথের লড়াকু সৈনিক, তখন আর কোনো নেতার এমন ভুমিকা চোখে পড়েনি। বর্তমানেও সুমন আহমেদ ভুঁইয়া’র ডাকে যেকোনো সময় ১০হাজার শ্রমিক ও নেতা কর্মীগণ রাজপথে মিছিলে আসেন। এছাড়াও দলীয় যেকোনো কর্মসূচিতে সবচেয়ে বেশি নেতাকর্মী নিয়ে হাজির হওয়ার নজির রয়েছে সুমন আহমেদ ভুঁইয়ার রাজনীতি জীবনে। সুমন আহমেদ ভুঁইয়া বলেন, এই বাংলার আকাশ বাতাস সাগর, গিরি ও নদী ডাকিয়েছে তোমায় বঙ্গবন্ধু আবার আসিতে
যদি…“যতকাল রবে পদ্মা, মেঘনা, গৌরী, যমুনা বহমান-ততকাল রবে কীর্তি তোমার শেখ মুজিবুর রহমান” তিনি আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, জাতীয় শ্রমিকলীগ ও আওয়ামী সহযোগী সংগঠনের আশুলিয়া থানাধীন সকল নেতা কর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার পক্ষে আছেন, থাকবেন। রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম নেওয়া সুমন আহমেদ ভুঁইয়া’র বাবা সৈয়দ আহমেদ ভুঁইয়া সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, এছাড়াও তিনি ইয়ারপুর ইউনিয়ন পরিষদের দুই দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান। সুমন আহমেদ ভুঁইয়া নিজেকে সৎ ও যোগ্য দাবি করে বলেন, জনগণের স্বার্থে আমি রাজনীতি করি, আমার এলাকায় চাঁদাবাজি নেই, ব্যবসায়ীরা শান্তিতে ব্যবসা বাণিজ্য করছেন। তিনি বলেন, আমি দলে অনুপ্রবেশকারী নয়, ছাত্রজীবন থেকে সততার সঙ্গে
রাজনীতি করে আমার যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে আসছি। তিনি আরও বলেন, টেন্ডারবাজি চাঁদাবাজির সঙ্গে কখনো জড়াইনি, ছাত্রলীগ থেকে রাজনীতির হাতেখড়ি, আশুলিয়া থানা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক এর গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছি। কর্মীদের মূল্যায়ন ও দলের ভাবমূর্তি বৃদ্ধির জন্য কাজ করি আমি, তাই আমার অধিকার আছে বলেই আমি আশুলিয়া থানা যুবলীগের যোগ্য পদের প্রত্যাশী। তিনি আরও বলেন যে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে তার দেখানো পথে নিজেকে অবিচল রেখেছি, তার প্রমান আছে অনলাইনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে। শীর্ষ নেতাগণ ও দলীয় কর্মীরা যদি মনে করেন, আমি আশুলিয়া থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদের যোগ্য, তাহলে আমাকে নির্বাচিত করবেন। তিনি আরও বলেন, আমি যদি সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাই-তাহলে প্রকৃত নেতাকর্মীদের মূল্যায়নসহ সবাইকে সাথে নিয়ে কমিটি গঠন করে শেখ হাসিনার হাতকে আরও বেশি শক্তিশালী করবো ইনশাআল্লাহ। এই প্রতিবেদন ধারাবাহিক ভাবে চলবে। পর্ব ১।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *