আশুলিয়ায় বিভিন্ন রাস্তা বেহাল অবস্থায় হাজার হাজার শ্রমিকদের ভোগান্তি

ঢাকা

হেলাল শেখঃ ঢাকার প্রধান শিল্পা ল আশুলিয়ার জামগড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার কারণে রাস্তার বেহাল অবস্থা-গার্মেন্টসসহ খেটে খাওয়া মানুষগুলো হাজার হাজার শ্রকিকদের ভোগান্তির শেষ নেই।
শনিবার (২০ নভেম্বর ২০২১ইং) সকাল ৮টার দিকে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা প্রধান শিল্পা ল আশুলিয়ার জামগড়া বাগবাড়ি রোডের দি রোজ গার্মেন্টস এর সামনে কাঁঠাল তলা চৌরাস্তায় শ্রমিক ও পথচারীরা থেমে থেমে চলাচল করছেন অফিসে যাওয়ার সময়। তাদের কাছে জানতে চাইলে তারা গণমাধ্যমকে বলেন, বৃষ্টি নেই তবুও বাসা বাড়ির নোংরা পানি রাস্তায় ফেলানো হয়, এতে পুরো রাস্তা ভেঙে গেছে, ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় রাস্তার এই বেহাল অবস্থা হয়েছে। আমাদের অফিসে যাওয়ার সময় লাইন ধরে রাস্তা পারাপাড় হতে হয়। অনেক শ্রমিকরা বলেন, তিতাস গ্যাস কোম্পানি লাইন কেটে দেওয়ায় বাসায় গ্যাস নেই, আজ দুইদিন খেয়ে না খেয়ে বাসা থেকে অফিসে যাওয়ার সময়ও আমাদের পোশাক শ্রমিকদের ভোগান্তির শেষ নেই। তারা আরও বলেন, মেম্বার চেয়ারম্যান আমাদের কষ্ট দেখেন না।
এ বিষয়ে আশুলিয়া থানাধীন ইয়ারপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নুরুল আমিন সরকার বলেন, এলাকায় যারা জনপ্রতিনিধি তাদেরই দায়িত্ব রাস্তা নির্মাণ করা এবং জনসেবা করা কিন্তু কেউ কারো খবর রাখে না। তিনি বলেন, ঢাকার প্রধান শিল্পা ল আশুলিয়ায় ৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ইয়ারপুর ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি পোশাক কারখানা। শিল্পের উন্নয়ন হলেও রাস্তার উন্নয়ন হয়নি ইয়ারপুরে। তিনি আরও বলেন, ইয়ারপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ড জামগড়ার বাগবাড়ি রোডটির কাজ একাধিকবার করা হলেও রাস্তার মাথায় আটকে আছে উন্নয়ন, পুরো রাস্তার কাজ দুইবার করলেও যা তাই রাস্তার বেহাল অবস্থা। সেই সাথে ‘দি রোজ পোশাক কারখানার’ সামনে চৌরাস্তায় প্রায় প্রতিদিন সকালে হাজার হাজার শ্রমিকদের চলাচলের সময় ভোগান্তির শেষ নেই। এটা দেখার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট পোশাক কারখানার মালিক ও ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার ও চেয়ারম্যানের।
এ ব্যাপারে জানতে ইয়ারপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার আনোয়ার হোসেন মৃধা’র সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। সূত্রে জানা গেছে, দেশের সব এলাকার রাস্তা-ঘাটের উন্নয়নমূলক কাজ করা হলেও উক্ত এলাকায় তেমন কোনো উন্নয়নমূলক কাজ না করায় জনপ্রতিনিধি পরিবর্তন হতে পারে। অনেকেই নিজেদের ছবি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারণা চালাচ্ছেন কিন্তু রাস্তার বেহাল অবস্থা তা নিয়ে কেউ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন না বলে এলাকাবাসী জানায়। অনেকেরই অভিমত সরকারি নয়নজুলি খালটি উদ্ধার করলে আর ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা হলে এলাকার বসবাসকারী হাজার হাজার শ্রমিক ও এলাকাবাসী ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *