আশুলিয়ায় এক নারীকে ধর্ষণ চেষ্টাসহ শ্লীতাহানী ও মারপিট করার ঘটনায় থানায় অভিযোগ!

ক্রাইম রিপোর্ট

বিশেষ প্রতিনিধিঃ ঢাকার আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের ভাদাইল সাধু মার্কেট হোসনেআরা বেগমের বাড়ী (হাসান মঞ্জিল) এর ভাড়াটিয়া মোঃ মাহফুজ মোরশেদ এর স্ত্রী মোছাঃ আইরিন সুলতানা (৩০) কে মোঃ রায়হান (৩০) ও তার লোকজন মারপিট করিয়া শ্লীতাহানী ও ধর্ষণের চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে।
আশুলিয়া থানার অভিযোগে মোছাঃ আইরিন সুলতানা (৩০) বলেন, আমার স্বামী-মোঃ মাহফুজ মোরশেদ, মাতা-হনুফা খাতুন, সাং-টামটা, থানা শাহরাস্তি, জেলা চাঁদপুর, বর্তমান-ভাদাইল সাধু মার্কেট হোসনেআরা বেগম এর বাড়ী (হাসান মঞ্জিল) থানা-আশুলিয়া, ঢাকা। এ ঘটনায় বিবাদী-১। মোঃ রায়হান (৩০), পিতা মৃত চাঁন মিয়া, ২। মোছাঃ মুন্নি (২৮), স্বামী-মিজানুর রহমান, ৩। মোছাঃ কোহিনুর বেগম (৫০), স্বামী-মৃত চাঁন মিয়া, সর্ব সাং-ভাদাইল সাধু মার্কেট, থানা-আশুলিয়া, জেলা-ঢাকাগণ এবং তাহাদের আরও ৪/৫ জন বিবাদীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উক্ত ১নং বিবাদী আমার দেবর মিজানুর রহমানের স্ত্রীর বড় ভাই, ২নং বিবাদী আমার দেবরের স্ত্রী এবং ৩নং বিবাদী শাশুড়ী। তিনি আরও বলেন, আমার দেবর মিরপুর এলাকায় থাকে। পারিবারিক বিষয় নিয়ে বিবাদীগণ আমাদের সাথে বিরোধ সৃষ্টি করিয়া আসছিলো। গত ০৩/০১/২০২৩ইং তারিখ সন্ধ্যা ৬টার দিকে বিবাদীগণ তাহাদের সহযোগী আরও ৪/৫ জন অচেনা খারাপ লোকজন নিয়া আমাদের বাসায় প্রবেশ করিয়া আমাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আমি গালি দিতে নিষেধ করিলে প্রথমে রায়হান, এরপর সকল বিবাদী মিলে আমাকে এলোপাতাড়ী ভাবে মারপিট করিয়া আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। ১নং বিবাদী রায়হান আমার পরিহিত কাপড় চোপড় টানা হ্যাছড়া করিয়া ছিড়িয়া শ্লীতাহানী করে। আমার স্বামী ও শাশুড়ী মাফুজা বেগম ছাড়াইতে গেলে বিবাদীগণ তাদেরকেও অনেক মারপিট করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। আমার বাসায় রাখা নগদ ২,৫০,০০০/-টাকা নিয়া যায়। এসময় আমাদের ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন আগাইয়া আসিলে বিবাদীগণ আমাদেরকে শান্তিতে থাকিতে দিবে না মর্মে জানাইয়া প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে। ভিকটিম সুলতানা আরও বলেন, রুমের দরজা বন্ধ করে প্রথমে ১নং বিবাদী রায়হান আমাকে জোড় করে ধর্ষণের চেষ্টা করে, আমি চিৎকার দিলে তখন আমাকে মারপিট শুরু করে, আমি লজ্জায় এ ঘটনা কাউকে বলতে পারিনি, এখন সত্য বলছি যে, রায়হান আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা ও মারপিট করেছে, আমি এর সঠিক বিচার চাই।
এ বিষয়ে ভিকটিমের স্বামী মাহফুজ মোরশেদ বলেন, আমার ভাইয়ের কোনো খবর পাচ্ছি না, আমার ভাইয়ের সন্ধান চাই, সেই সাথে আমার স্ত্রী সুলতানাকে ধর্ষণের চেষ্টা ও মারপিট করার বিচার চাই। তিনি আরও বলেন, বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসে আমার বাসায় যারা হামলা চালিয়েছে এবং আমার স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টায় মারপিট করেছে সেই দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য আমার স্ত্রী আশুলিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে, আমি চাই। তিনি আরও বলেন,এই ঘটনার সাথে যারা জড়িত তারা যেন কঠিন সাজা পায়। এ বিষয়ে বিবাদীদের বক্তব্য নিতে গিয়ে তাদেরকে পাওয়া যায়নি।
উক্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন আশুলিয়া থানার (সাব-ইন্সপেক্টর) জি. এম আসলামুজ্জামান (আসলাম), (এ এস আই) রুহিন মীর। এ ব্যাপারে (এএসআই) রুহিন মীর বলেন, মোছাঃ আইরিন সুলতানা নামের এক নারী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন, তদন্ত চলছে। বাদী মামলা করলে আসামীদেরকে গ্রেফতার করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান। এ বিষয়ে র‌্যাব জানায়, ধর্ষণের চেষ্টা বা শ্লীতাহানীর ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগে ভাদাইলে একাধিক নারী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন, এই নারীর বেলায়ও এমনটি হতে পারবো বলে দাবী করেন এলাকাবাসী। উক্ত প্রতিবেদন পর্ব-১।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *