1. sokalerbangla@gmail.com : admin :
  2. Jahid0197@gmail.com : jahid hasan : jahid hasan
  3. sholimuddin1986@gmail.com : Sholim Uddin : Sholim Uddin
February 23, 2024, 11:46 pm
Title :
সদরপুরের ভাষাণচরে বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম ইপিজেড থানা দ্বি-বার্ষিক পরিদর্শনে পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় আশুলিয়ায় সামান্য বৃষ্টিতে পানির নিচে রাস্তা—হাজার হাজার শ্রমিকসহ জনগণের চরম দুভোর্গ! চমেক হাসপাতাল থেকে আবারো ১ দালাল গ্রেপ্তার রাজশাহী পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সদা প্রস্তুত: সেনা প্রধান শফিউদ্দিন আহমেদ তানোরে যুবলীগ নেতা জিয়াউর হত্যার ঘটনায় ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা রাজশাহী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের উদ্যোগে প্রেস রিলিজ গাইডলাইন ও ভিডিও এডিটিং বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত খাগড়াছড়ি , পানছড়ি থানায় (এক) কেজি গাঁজা সহ ০২(দুই) জন আসামী গ্রেফতার গাজীপুরের শ্রীপুরে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

পেঁয়াজের ঝাঁজে জ্বলছে চোখ, কাটছে পকেট

Reporter Name
  • Update Time : Monday, December 11, 2023,
  • 34 Time View

মোঃ আবদুল রহিম
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকা

পিপার স্প্রে বলে একটি বস্তু আছে পৃথিবীতে। এ দিয়ে হামলাকারীদের আপনি নাস্তানাবুদ করে ছাড়তে পারেন। চোখ-মুখ জ্বালিয়ে এমন বিতিকিচ্ছিরি অবস্থা উপহার দেয় এই স্প্রে, যে হামলা তো দূরের কথা, নিজেদের বাঁচাতেই ব্যস্ত হয়ে পড়ে তারা। তাই অনেক দেশে শারীরিক আক্রমণ মারণাস্ত্র নয় – এমন উপায়ের ব্যবহারে পিপার স্প্রে এগিয়ে আছে। একইভাবে টিয়ার শেলের কথাও উল্লেখ করা যায়।

পিপার স্প্রে বা টিয়ার শেল – এ সবের প্রসঙ্গ উঠল বর্তমান বাজারে পেঁয়াজের ঝাঁজের কথা বিবেচনা করে। পিপার স্প্রে বা টিয়ার শেল যেমন উদ্দেশ্যমূলকভাবে ব্যবহার করা হয়, তেমনি পেঁয়াজের বর্তমান ঝাঁজও অনেকটা উদ্দেশ্যমূলক ও পরিকল্পিতভাবে দেশের সাধারণ মানুষের ওপর ব্যবহার করা হচ্ছে। তফাত একটাই। পিপার স্প্রে বা টিয়ার শেলের বহুল ব্যবহার হয় বিশৃঙ্খলা কমাতে। আর আমাদের দেশে পেঁয়াজের ঝাঁজ পরিকল্পিতভাবে ব্যবহার হচ্ছে ক্রেতার পকেট কেটে বিশৃঙ্খলা বাড়াতে!

সরবরাহ পর্যাপ্ত, তবুও চড়া পেঁয়াজের বাজারসরবরাহ পর্যাপ্ত, তবুও চড়া পেঁয়াজের বাজার
এতক্ষণে বাজার ফেরত মানুষেরা নিশ্চয়ই পেঁয়াজের ঊর্ধ্বগতি সম্পর্কে ভালোমতোই অবগত। আজকের পত্র-পত্রিকা, টেলিভিশন চ্যানেল বা অনলাইন নিউজ পোর্টাল যাই দেখি না কেন, চোখে পড়বে শুধুই পেঁয়াজ। এর কারণ হলো, মাত্র এক দিনে এ দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ১০০ টাকারও বেশি বেড়েছে। এবং এই মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে ঘণ্টায় ঘণ্টায়। অর্থাৎ, লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। কারণ হিসেবে দেখানো হচ্ছে, মানে আড়তদার, আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা দেখাচ্ছেন ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্তকে। বলা হচ্ছে, এ কারণেই পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। যদিও এখন বাজারে আমদানি করা পেঁয়াজের দাম দেশির তুলনায় কম। দেশির দাম কেজি প্রতি ২২০ থেকে ২৪০ হলেও আমদানি করা পেঁয়াজ মিলছে ১৮০ থেকে ২০০ টাকায়।

অর্থাৎ, যে বিদেশি পেঁয়াজ আনার প্রতিবন্ধকতা দেখিয়ে বাজারে মূল্যবৃদ্ধি ঘটল, সেই বিদেশির দামই কম রয়ে গেল। বাজার অর্থনীতির সূত্র অনুযায়ী, চাহিদার সাথে তাল মিলিয়ে জোগান না বাড়লে জিনিসপত্রের দাম বাড়তেই পারে। অথচ গতকাল রোজ শনিবার (৯ ডিসেম্বর, ২০২৩) এ দেশের বাজারে পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি অস্বাভাবিক কোনো চাহিদা সৃষ্টির কারণে ঘটেনি। এমন নয় যে, হুট করেই টন টন পেঁয়াজের প্রয়োজন হয়েছে মানুষের। চাহিদা আগের মতো থাকলেও স্রেফ একটা তথ্য ছড়িয়েই পুরো বাজারদর বদলে ফেলা হয়েছে।

ঊর্ধ্বমুখী পেঁয়াজের দাম, কেজিতে বেড়েছে ৫৫ টাকাঊর্ধ্বমুখী পেঁয়াজের দাম, কেজিতে বেড়েছে ৫৫ টাকা
চাহিদা, জোগান ও দামের এই পারস্পরিক সম্পর্কযুক্ত বিষয়টি কিছু পরিসংখ্যান দিয়ে বোঝার চেষ্টা করা যাক। চলতি বছরের মে মাসে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এ বছর দেশে পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে ৩৪ লাখ টনের বেশি। দেশে বছরে পেঁয়াজের চাহিদা ২৬ থেকে ২৮ লাখ টন। আর বর্তমানে এক কেজি দেশি পেঁয়াজের উৎপাদন খরচ ২৮ থেকে ৩০ টাকা।

অর্থাৎ, দেশে চাহিদার তুলনায় পেঁয়াজের উৎপাদন এখনো বেশি। কিন্তু উপযুক্ত সংরক্ষণের অভাবে বা প্রতিকূল পরিবেশের কারণে ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়। আর সেই ফাঁকে প্রয়োজন হয় আমদানির। আর সেই আমদানির প্রতিবন্ধকতা বা বিরূপ অবস্থাকে সামনে এনেই চলে অযাচিত মুনাফা আদায়ের খেলা।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সরকারি নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো অবশ্য মাঠে নেমেছে। আড়তদার থেকে শুরু করে সাধারণ খুচরা ব্যবসায়ী– সব পক্ষকেই শাস্তির আওতায় আনতে হয়েছে। অভিযোগ, নির্ধারিত দামের চেয়ে অনেক বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছিল। বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রির সপক্ষে কোনো ক্রয় রশিদও দেখাতে পারেননি পাইকারি ব্যবসায়ীরা। খুচরা ব্যবসা যারা করেন, তারা দাম বাড়ান আসলে এই পাইকারি ব্যবসায়ীদের কারণেই। এটাই চেইন। বেশি দামে যদি তারা কেনেন, তবে তার সঙ্গে লাভ যোগ করেই নতুন বিক্রয়মূল্য নির্ধারিত হয়। ফলে মূল্যবৃদ্ধি প্রথমে ঘটে পাইকারিতে, এরপরই তা পুরো বাজারে ছড়িয়ে পড়ে।

পেঁয়াজ রপ্তানিতে বিধিনিষেধ আরও ৩ মাস বাড়াল ভারতপেঁয়াজ রপ্তানিতে বিধিনিষেধ আরও ৩ মাস বাড়াল ভারত
এর আগেও পেঁয়াজের ডাবল সেঞ্চুরি দেশের মানুষ দেখেছে। ২০১৯ সালে পেঁয়াজের কেজি ২৫০ টাকায় পৌঁছেছিল। এবার একদিনেই কাছাকাছি চলে গেছে পেঁয়াজের দাম। এভাবে চললে নতুন রেকর্ড গড়া সময়ের ব্যাপার মাত্র। একটি বিষয় স্পষ্ট যে, বিদেশি পেঁয়াজকে সামনে রেখে অযৌক্তিকভাবে বাড়ানো হয়েছে দেশি পেঁয়াজের দাম। এই পেঁয়াজ আমরাই উৎপাদন করেছি, আমরাই ১২০ টাকা কেজির পেঁয়াজকে ২২০ টাকায় নিয়ে গেছি। অর্থাৎ, এখানে বর্হিশক্তির কোনো প্রভাব নেই। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, গত দুই বছরে দেশে পেঁয়াজের উৎপাদন বেড়েছে ১০ লাখ টনেরও বেশি। মূলত ২০১৯ সালে পেঁয়াজের দামের উল্লম্ফন থেকে শিক্ষা নিয়েই পেঁয়াজের চাষ বাড়ানো হয়। কিন্তু তারপরও ছলে, বলে, কলে-কৌশলে ক্রেতাদের গলা টিপে ধরার মানসিকতার কোনো পরিবর্তন পরিলক্ষিত হচ্ছে না। একটি জাতীয় সংবাদপত্রে দেওয়া বাণিজ্যমন্ত্রীর সাম্প্রতিক মন্তব্যে অভিযোগের তিরের গন্তব্য আরও স্পষ্ট। তিনি বলেছেন, ‘ভারতের রপ্তানি বন্ধের সুযোগটা নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এটা ঠিক হয়নি। তবে ভোক্তা অধিদপ্তর বাজার নিয়ন্ত্রণে অভিযান চালাচ্ছে।‘

সুতরাং এই অনুসিদ্ধান্তে আসা যেতেই পারে যে, পেঁয়াজের দাম বাড়তি চাহিদার কারণে বাড়েনি। বাড়েনি ভারতের রপ্তানি বন্ধের পদক্ষেপের ত্বরিত প্রভাব হিসেবেও। পেঁয়াজ দুর্মূল্য হয়ে উঠেছে স্রেফ এই দেশেরই কিছু ব্যবসায়ীর ঝোপ বুঝে কোপ মারার স্বভাবের কারণে। তাদের এই স্বভাব এতই বৈষম্যহীন চরিত্রের যে, মানুষের পকেট বা শব্দান্তরে গলা কাটার সময় তারা আত্মীয়-অনাত্মীয়-দেশি কোনো কিছুর ভেদাভেদ করেন না। আস্তিনে থাকা দামের ছুরি বসিয়ে ক্রেতার পকেট কেটে লাভ করাই মুখ্য। কেউ সেই প্রক্রিয়ায় দমবন্ধ হয়ে মরে গেলেও তাতে কিছু যায় আসে না তাদের!

‘লেটার’–এর বাজারে মানুষ যাবে কোথায়’লেটার’–এর বাজারে মানুষ যাবে কোথায়
সমস্যা হলো, এই প্রবণতা এ দেশে নতুন কিছু নয়। এর আগে

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved dailychoukas.com 2018
Theme Customized BY LatestNews